হ্যান্ডেলিং

ইনটেক গপ্পোঃ হ্যান্ডেলিং by ‪#‎টম_বিলাই‬

আক্কাসের হ্যান্ডেলিং এর রোগ অইচে। হালায় ডেইলি চব্বিশ ঘন্টার মইদ্ধে চুইদ্দো ঘন্টাই হ্যান্ডেলিং এ সময় কাটায়..

আক্কাসের বাপ শাম’চুদ্দিন। হুনছি হেতেও নাকি জোয়ান বয়সে রেগুলার পকাত পকাত কইরা হ্যান্ডেলিং মারতো! হ্যান্ডেলিং মারতে মারতে হালায় তার সেক্স পাওয়ার কমাইয়া হালাইচিলো..

শাম’চুদ্দিনের বউ জুলেখা বেগুন। শামচুদ্দিনে নাকি বিয়ার পরে চুইদ্দো বছর সন্তান জন্মদানে অক্ষম আচিলো! পরে ডাঃ জসিম চোদারির নির্দেশে টেস্ট-টিউব বেবি পদ্ধুতিতে হালায় আক্কাসরে জন্ম দিচিলো..

আক্কাইসসায় এক্কেরে তার বাপের লাহান অইচে। হালার হ্যান্ডেলিং এর খুব শখ। হেতে তার বাপের লাহান ডেইলি ব্রা নব্বই বার হ্যান্ডেলিং মারে। সেই দুই হাজার চুইদ্দো সালে হ্যান্ডেলিং ইশটারট কচ্চিলো হালায়! তহন থেইক্কা হেতে রেগুলার হ্যান্ডেলিং মারে..

একদিন আক্কাস ইশকুলে গেচে। ইশকুলে অইদিন নয়া একডা ম্যাঠাম আইচে। হেতি দেখতে এক্কেরে সানি লিওনের লাহান! তারে দেইখাই আক্কাসের ক্ষেপণাস্ত্র দ্বিগুন থেইক্কা তিন-গুন অইয়া গেলো..

আক্কাইসসায় কন্ট্রোল হারাইয়া হালাইচে। হালার অহন হ্যান্ডেলিং মারতেই অইবো। নাইলে মনে শান্তি অইতেচে না! হেতে ক্লাসের মইদ্ধেই প্যান্টের উপ্রে দিয়া ঘষাইয়া ঘষাইয়া হ্যান্ডেলিং মারতে শুরু কল্লো..

হালায় হ্যান্ডেলিং মারতেচে মারতেচে! হঠাৎ প্রচন্ড জোরে তার প্যান্টের চেইনের লগে তার থার্ড গিয়ারে ঘষা খাইলো। এতে আক্কাসের মেশিন ছিইড়া দু-দু টুকরা অইয়া গেলো..

এভাবেই হ্যান্ডেলিং মারার কারনে অকালে ছিড়ে যাচ্ছে হাজার হাজার মেশিন। তাই আসুন, আমরা সবাই সচেতন হই আর হ্যান্ডেলিং কে না বলি।

তাই তো পুটকিপুরির সন্যাসি ‘বাবা মোটা তানবীর’ বলেছেন, “মজা লুটিবার জন্য যদি ব্যাবহার করো হাত, দুঃখে কাটিবে সারা দিন এবং রাত”

লেখকঃ টম বিলাই

Advertisements
সংক্ষিপ্ত পোষ্ট

একটি ইনটেক গপ্পো

চুইদ্দো ঘন্টা পর আক্কাসের এসএসসি পরীক্ষা! তাই, তার বাপ শাম’চুদ্দিন আইজ তারে জলদি ঘুম থেইক্কা তুলচে..

আক্কাস হালায় ঘুম থেইক্কা উইঠাই সবার আগে বাথরুমে গিয়া ‘পকাত পকাত’ কইরা গিটার বাজাইলো, এরপর হাগা-মূতা শেষ কইরা বাথরুম থেইক্কা বাইর হইলো..

হেতে বেগুন ভাজির লগে পরাটা দিয়া নাস্তা কইরা তার রূমের মইদ্ধে হান্দাইলো! এরপর তার রূমের দরজা বন্ধ কইরা তার ডার্লিং ‘জোলেখা বেগুন’ এর লগে ফেচবুকে চ্যাট কত্তে লাগলো..

আক্কাসের বাপ মায়ে ভাবতাচে যে, হেতে দরজা বন্ধ কইরা পড়ালেহা কত্তাচে! কিন্তু না, হেতে জোলেখার লগে ‘ক্যামসেক্স’ কত্তাচে..

এসএসসি পরীক্ষা শুরু, আক্কাস হালায় হলে হান্দাইয়া-ই দেখলো একটাও প্রশ্ন কমন পরে নাই..

এভাবেই ফেচবুকের নেশায় পরীক্ষার হলে ধর্ষিত হচ্চে হাজার হাজার আক্কাস! তাই আসুন, আমরা পরীক্ষার আগের দিন ফেচবুক চালানো থেকে বিরত থাকি এবং মন দিয়ে পড়ালেহা করি..

সবাইরে বেস্ট অব ফাক

লেখকঃ Tanbeer (টম বিলাই)

সংক্ষিপ্ত পোষ্ট

‘কিরনমালা’ দ্যা গ্রেট ‘খানকি মাগি’

বহু বছর আগে পুটকিপুরি রাজ্যে দুর্ঘটনাবশত এক মাইয়া পয়দা অইচিলো। বাপ-মায়ে আদর কইরা মাইয়ার নাম রাখচিলো কিরনমালা..

ছুডুবেলা থাকি কিরনমালার কলগার্ল হওনের খুউপ শখ! হেতির দেহ ব্যাবস্যা কইরা টেকা কামাইবার খুউপ ইচ্চা..

এক রাইতে পুটকিপুরির রাক্ষসী রাণী কটকটির আম্মা ‘পকাত-ই মা’ স্বপ্নদোষে দেখলো যে, কিরনমালা হেতির মাইয়ারে পকাত কইরা মাইরা হালাইচে..

ওইদিকে একদিন কিরনমালা একডা নাইট ক্লাবে ডানস কত্তে গিয়া ঝুনঝুন কইরা বুক দুলাইতে গিয়া হঠাৎ তার ব্রাশি সাইজের ব্রা খুইলা যায়! ওইথাকি তার নাম ঝুনঝুনি মালা..

তো কিরনমালারে ক্লাব থাকি বাইর কইরা দিচে! হেতি চাকরির খোজে গেলো মখারাণী কটকটির দরবারে! ওইহানে ‘পকাত-ই’ মার লগে হেতির কথোপকথনঃ
– তোর নাম?
– ঝুনঝুনি মালা..
– এইহানে কিল্লাইগা?
– আমার একডা চাকরি লাগবো!
– চুদে যাই, চুদে যাই (মরে যাই)! তুই আগে কি কত্তি?
– একডা নাইট ক্লাবে কাম কত্তাম!
– চুদে যাই, চুদে যাই! তুই রাজ্যের সেক্স এডভাইসর হইবি!
– ওক্কে! ডিল কনফার্ম!

তহন থেইক্কা মাগি কিরনমালার যাত্রা শুরু..
(চলবে..)

লেখকঃ তানবীর (ওরফে টম বিলাই)

সংক্ষিপ্ত পোষ্ট

নুনুর মত ভালবাসা..

সে বহুত দিন আগের কথা! পুটকিপুরি রাজ্যে হরিপদ নামে একজন রাজা আচিলো..

সেই রাজার ৭ টা মাইয়া আচিলো! একদিন হালায় ঠিক কল্লো তার মাইয়াগো ভালবাসার পরীক্ষা নিবে..

যেই কথা সেই কাজ, রাজা মশাই তার মাইয়াগো ভালবাসার টেস্ট নিতাচে। একজন কয়, “আমি তোমারে জানের থেইক্কাও বালুবাসি” আরেক জন কয়, “আমি তুমারে প্রানের থেইক্কাও বেশী বালুবাসি”..

কিন্তু হালার পো হালার সবচেয়ে আদরের মাইয়া কইলো, “আমি তুমারে নুনুর মত বালুবাসি”

রাজায় কইলো, “ওই ছেমড়ি কি কইলি, যা তোরে রাজপ্রাসাদ থেইক্কা বাইর কইরা দিলাম”..

কথাডা কওয়া মাত্রই রাজায় তার মাইয়ারে বনের মইদ্ধে হান্দাইয়া দিয়া গেলো..

চুইদ্দো ফেব্রুয়ারি! ‘টম বিলাইয়ের’ লগে রাজার যুদ্ধ চলতাছে! যুদ্ধে রাজা পরাজিত অইলো আর ‘টম’ রাজার ‘ললিপপ’ আই মিন ‘নুনু’ ধইরা হেচকা টান দিলো! এতে রাজার মেশিন ছিইড়া গেলো..

এখন রাজায় বুঝতে পাচ্চে তার মাইয়া তারে ওই কথাডা কেন কইচিলো..

তাই রাজায় বনের থে তার মাইয়ারে নিয়া আইলো আর তারে ওনেক সোনা দানা দিলো..

– by Tanbeèr

সংক্ষিপ্ত পোষ্ট

হরিপদ ও সুন্দরবনের এলিয়েন স্পেসশিপ..

সকালে ঘুম থেইক্কা উইঠাই হরিপদের মনে পচ্চে হালার রাইতে ঘুমের মইদ্ধে স্বপ্ন দোষ অইচিলো..

হেতে আইজ কয়দিন ধইরা বেশী স্টার জলসায় ব্লু ফিলিম দেখতাচে! এমন সময় হরিপদের মোবাইলে রিংটোন বেজে উঠলো, “নেংটু ঘটকের কথা শুইনা, অল্প বয়সে কল্লাম বিয়া”
– হ্যালো হরিপদ ফুকিং থুক্কু স্পিকিং?
– বাবা হরিপদ, আমি পুটকিপুরির সন্যাসি ‘বাবা মোটা তানবীর’
– ও বাপা, কন! কিতা কইতেন..
– তুই আমার অতি প্রিয় শিষ্য! আয় সুন্দরবনে আমার আশ্রমে আয়! তোরে মন্ত্র পইরা ফু দিমু..

হরিপদ হালার পো হালায় ‘চুন্দর ধোনে’ থুক্কু ‘সুন্দরবনে’ রওনা দিলো! হেতে হাটি হাটি পকাত পকাত কইরা হাটতাচে..

হঠাৎ একটা ‘স্পেসশিপ’ চুন্দরবনে অবতরণ কল্লো..

হরিপদ ভাবলো, ওইডা নিশ্চই ‘বাবা মোটা তানবীর’ এর আশ্রম হইবো! তো হেতে ‘স্পেসশিপ’ এর কাচে যাইতেই পকাত কইরা তার ‘বিচি’ আর ‘ধোন’ গায়েব অইয়া গেলো..

মোরালঃ কখনও ভন্ড পীর-দরবেশরে বিশ্বাস কব্বা না, নাইলে আফনের হরিপদ এর লাহান হাল অইবো..

– by তানবীর

সংক্ষিপ্ত পোষ্ট

একটি ক্ষুদ্র প্রচেষ্টা..

লুইচ্চামি একটি আর্ট, লুইচ্চামি একটি শিল্প। কিন্তু বর্তমানে কিছু হারামজাদার কারনে লুইচ্চামি আজ বিলুপ্তির পথে! তাই লুইচ্চামি বাচিয়ে রাখতেই এই ক্ষুদ্র প্রচেষ্টা..